Nandan News
ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতা দুর্ভোগের শেষ কবে কেউ জানে না

ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতা দুর্ভোগের শেষ কবে কেউ জানে না

ঢাকা মহানগরীতে সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতায় চরম দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে নগরবাসীকে। অপরিকল্পিত নগরায়ন ও অপর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা, জলাভূমি, নিম্নাঞ্চল, খাল ও নদী ভরাট ও দখল, খাল ও নালা-নর্দমা আবর্জনায় ভরাট এবং নিয়মিত পরিষ্কার না করা, সংস্থাগুলোর দায়িত্বহীনতা, জবাবদিহিতার অভাব, দায়িত্বে অবহেলা, সমন্বয়হীনতা, জনসচেতনতার অভাব রাজধানীর জলাবদ্ধতার অন্যতম কারণ।

             এ বছর গ্রীষ্মকালে ঢাকায় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। আষাঢ়-শ্রাবণ বর্ষাকাল হলেও এ বছর শ্রাবণের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত বৃষ্টি হয়নি। টানা খরার পর শ্রাবণের প্রথম সপ্তাহের শেষে বর্ষার আসল রূপ দিতে শুরু করেছে প্রকৃতি। তবে রাজধানীবাসীর জন্য বর্ষার এমন রূপ চরম দুর্ভোগ বয়ে আনছে। কেননা কর্মচঞ্চল নগরজীবনে বৃষ্টি, জলাবদ্ধতা, যানজট অনেকাংশেই বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। কোথাও হাঁটু পানি, কোথাও কোমর পানি। রাস্তায় চলাচল করতে গিয়ে নগরবাসীকে পোহাতে হচ্ছে নানা ভোগান্তি। জলমগ্ন রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় গর্ত থাকায় ঘটছে দুর্ঘটনা। নগরীর শ্যামপুর, পোস্তগলা, পুরান ঢাকার অলিগলিসহ আশপাশের এলাকায় পানিবন্দি হয়ে দুর্ভোগে পড়েছে। বৃষ্টির কারণে জলাবদ্ধতা-যানজটে ঢাকা মহানগরী অচল হয়ে পড়ে। : গত বছর ঠিক এই সময়ে সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেয়া হয়েছিল, এ বছর জলাবদ্ধতা হবে না। কিন্তু স্থানীয় সরকার বিভাগ, ওয়াসা, সিটি করপোরেশনসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগ তাদের সেই প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারেনি।

২৪ ঘন্টায় ৬০ মিলিমিটার বৃষ্টিতেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা জলাবদ্ধতার কবলে পড়ে। মেট্রো রেলসহ ওয়াসা, উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের উন্নয়ন প্রকল্পের কারণে বেশিরভাগ সড়ক এমনিতেই সংকুচিত হয়ে পড়েছে। যেটুকু সড়ক যানবাহন চলাচলের জন্য রয়েছে, তাও খোঁড়াখুঁড়িতে তৈরি হওয়া খানাখন্দে ভরা। জলাবদ্ধ সড়কে খানাখন্দের মধ্য দিয়ে চলতে গিয়ে আটকে পড়ছে বাস, কার, অটোরিক্সা ও রিক্সা। এতে রাজধানীর বেশিরভাগ সড়কজুড়ে সৃষ্টি হচ্ছে তীব্র যানজট। উত্তর সিটি করপোরেশনের ১২৩০ কি.মি., দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১০০০ কি.মি. এবং ওয়াসার বক্স কালর্ভাটসহ ৩৭০ কি. মি. ড্রেনেজ লাইন নিয়মিত পরিষ্কার এবং খালগুলো দখলমুক্ত করে নিয়মিত পরিষ্কারের পর্যাপ্ত উদ্যোগ না থাকায় সামান্য বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় রাজধানীর রাস্তাগুলো। রাজধানীর পানি নিষ্কাশন পথগুলো পলিথিন, প্লাস্টিক বোতলসহ বিভিন্ন ধরনের আবর্জনায় ভরাট হয়ে থাকে। শত শত কোটি টাকা খরচ করে এসব আবর্জনা পরিষ্কার, ড্রেনেজ ব্যবস্থার সংস্কার ও উন্নয়ন করলেও জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি মিলছে না নগরবাসীর। বর্তমান সময়েও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে ব্যাপক কার্যক্রম চলছে। এরপরও স্বস্তিতে নেই নগরবাসী।

 ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা অনুষ্ঠানে মেয়র বলেন, জলাবদ্ধতা-যানজট নিরসন তার দায়িত্ব নয়; জলাবদ্ধতা সমাধান করবে ঢাকা ওয়াসা; যানজটের সমাধান করবে অন্য সংস্থা। কিন্তু নগরবাসীর প্রশ্নÑ ডিএসসিসির নিয়ন্ত্রণাধীন ১০০০ কি.মি. ড্রেনেজ লাইন নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিষ্কার করা হচ্ছে কি? রাজধানীর জলাবদ্ধতা লাঘবে ২৬টি খালের প্রবাহ স্বাভাবিক রাখার ক্ষেত্রে ওয়াসা এবং ২ হাজার ৬ শত কি.মি. ড্রেনেজ লাইন পরিষ্কার রাখার ক্ষেত্রে উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এবং ওয়াসা উদ্যোগ নিবে এটাই নগরবাসীর প্রত্যাশা। : বৃষ্টির পানি ড্রেনের মাধ্যমে স্ট্রম স্যুয়ারেজে যাবে, সেখান থেকে খালে, খাল থেকে নদীতে পড়বে। দীর্ঘ এই পথের প্রতিটি অংশ নির্বিঘœ হতে হবে। কোথাও এটি বাধাপ্রাপ্ত হলেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হবে। জলাবদ্ধতা নিরসনে খালগুলো পুনরুদ্ধারের বিকল্প নেই। খালগুলো উদ্ধারের পর এগুলো পরিষ্কার করে দুই পাড় বাধাই করতে হবে। যাতে আবার বেদখল না হয়। পাশাপাশি এগুলো নিয়মিত তদারকি, পরিচর্যা ও পরিষ্কার করতে হবে। অন্যথায় ভবিষ্যতে জলাবদ্ধতা আরও ভয়াবহ রূপ নিবে। নগরবাসীকে জলাবদ্ধতা-যানজট থেকে মুক্তি দেয়ার আশ্বাস দেয়া হচ্ছে দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে।

বাস্তবে ভোগান্তি কমছে না, বরং প্রতি বছর বাড়ছে। : কয়েক দিনের বর্ষণে ডিএনডি বাঁধের ভেতর পানিবন্দি মানুষের দুর্ভোগ আরো বেড়েছে। রাস্তাঘাট, বাড়িঘর, শিল্প-কারখানা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ নানা স্থাপনা পানিতে তলিয়ে গেছে। কোথাও কোথাও হাঁটু থেকে কোমর পর্যন্ত পানি উঠে গেছে। রান্নাঘরও ডুবে গেছে অনেকের। বাঁধের ভেতরের শিল্প-কারখানার বিষাক্ত কেমিক্যালযুক্ত পানি বৃষ্টির পানির সঙ্গে মিশে একাকার হয়ে আছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, বৃষ্টিতে মারাত্মক জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। তবে ডিএনডি পাম্প হাউসের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ডিএনডির প্রধান খালে পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে, তাই এলাকা প্লাবিত হয়েছ। 

সূত্রঃ দৈনিক দিনকাল

RoseBrand

Related News

Nandan News

সন্ত্রাস-দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার মাধ্যমে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ এবং দুর্নীতিমুক্ত করে দেশকে আরও এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে তাঁর সংকল্প পুনর্ব্যক্ত করেছে...

বাংলাদেশকে সন্ত্রাস ও দুর্নীতিমুক্ত করা হবে : প্রধানমন্ত্রী

দুর্নীতি, সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদের হাত থেকে মুক্ত করে বাংলাদেশকে আরও উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।তিনি বলেন, &lsquo...

যত বড় আমলা বা রাজনীতিবিদ হোক, দুর্নীতি করলে ছাড় নয় : দুদক চেয়ারম্যান

যত বড় আমলা বা রাজনীতিবিদ হোক না কেন দুর্নীত করলে ছাড় দেয়া হবে না বলে বৃহস্পতিবার মন্তব্য করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।সাতক্ষীরা জে...

এখনো পোড়া গন্ধ মাটিতে

রাজধানীর রায়েরবাজারের বারইখালীতে বুড়িগঙ্গার তীরে সীমানা পিলার বসানোর পাইলিংয়ের সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তিনজনের মৃত্যুর ঘটনা এক দিন পার করেছে। ঘটনাস্থলের মাটিতে এখনো...

গোপালগঞ্জের জুডিশিয়াল আদালতে ছিনতাইয়ের ঘটনা, তিন ছিনতাইকারী গ্রেফতার

বাদল সাহা, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জে জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ছিনতাইয়ের ঘটনায় ৩ ছিনতাইকারীকে গ্রেফপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ২...

গোপালগঞ্জে BSMRSTতে ETE ও EEE বিভাগকে একভূত করার পক্ষে ও বিপক্ষে পাল্টাপাল্টি আন্দোলন শুরু করেছে দুই বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

 বাদল সাহা, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইটিই ও ইইই বিভাগকে একভূত করার পক্ষে ও বিপ...

অ্যাথলেটিকস ফিরেছে ‘প্রস্তরযুগে’

প্রায় ১৪ বছর পর ঢাকার বাইরে হচ্ছে জাতীয় অ্যাথলেটিকস। কিন্তু এবার কোনো রেকর্ড হলেও তা লিপিবদ্ধ করবে না ফেডারেশন। সিনথেটিক ট্র্যাকের বদলে চট্টগ্রামে অ্যাথলেটরা লড়...

প্রথম এটিপি কাপের শিরোপা জোকোভিচদের

আন্তর্জাতিক টেনিসের নতুন শিরোপা জিতে নিলেন সার্বিয়া। জোকোভিচের কৃতিত্বে এটিপি কাপের প্রথম সংস্করণের মালিক এখন সার্বিয়া।টেনিসকে আকর্ষণীয় করার লক্ষ্য অনেক দিন ধরে...

গরম লাগবে না টোকিও অলিম্পিক স্টেডিয়ামে

টোকিও অলিম্পিকের বাকি আর সাত মাস। ২০২০ সালের জুলাইয়ে পর্দা উঠবে দুনিয়ার সবচেয়ে বড় এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতার। স্বাগতিক শহর টোকিও এরই মধ্যে অলিম্পিকের মূল ভেন্যুর প্...

LIVE TV